বৃহস্পতিবার ৩ ডিসেম্বর ২০২০ ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
শিরোনাম: রাজধানীতে অনুমতি ছাড়া সভা-সমাবেশ করলে ব্যবস্থা       দম্পতিদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন নিষিদ্ধ        একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার জীবন যুদ্ধ        বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে ঢাকার প্রথম জয়       ইরানে ইউরেনিয়াম উৎপাদন ও মজুতের আইন পাস        আঙ্কারায় স্থাপিত হবে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য : তথ্যমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাতে তুরস্কের রাষ্ট্রদূত       হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়ালো ভারত      
টিপু আলম মিলনের গল্পে নতুন ধারাবাহিক- ‘জমিদার বাড়ী’
দুলাল খান
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২০, ৬:২৯ পিএম |

  টিপু আলম মিলন, উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক, বৈশাখী টিভির  বৈশাখী টিভির উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক  টিপু আলম মিলনের গল্পে বৈশাখী টেলিভিশনে শুরু হয়েছে তারকাবহুল নতুন ধারাবাহিক নাটক: ‘জমিদার বাড়ী’। সপ্তাহে তিনদিন প্রতি মঙ্গল, বুধ ও বৃহষ্পতিবার রাত ৯টা ২০ মিনিটে প্রচার হবে নাটকটি। অভিনয় করেছেন মনোজ সেন গুপ্ত, শম্পা রেজা, আ খ ম হাসান, নাদিয়া মীম, শিল্পী সরকার অপু, সুব্রত, মোমেনা চৌধুরী,  মিলন ভট্ট, সিফাত, ইমতু, রাশেদ মামুন অপু প্রমুখ। গল্প:  টিপু আলম মিলন, সংলাপ- চিত্রনাট্য ও পরিচালনা: সাজ্জাদ হোসেন দোদুল । প্রযোজনা: এশিয়াটিক মাইন্ড শেয়ার।
নাটকের কাহিনী বলতে গিয়ে বৈশাখী টিভির উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক  টিপু আলম মিলন বলেন, জমিদারী প্রথা শেষ হয়েছে সেই কবে। ভগ্নপ্রায় জমিদার বাড়ীগুলো এখন পর্যটন কেন্দ্রে পরিণত। জমিদারী প্রথা শেষ হলেও বংশ পরম্পরায় তাদের ঠাট-বাঁট, আচার-আচরণ, চলন-বলন এখনো রয়ে গেছে। নদী মরে  গেলে যেমন তার বাঁক রয়ে যায় তেমনি জমিদারী শেষ হলেও তাদের শরীরে রয়ে গেছে জমিদারী রক্ত।  জমিদারী রক্তের কারণেই অহংকারে মাটিতে পা পড়ে না, আশপাশের মানুষকে তাচ্ছিল্য করে, ঘৃনার চোখে দেখে। তাদের চলন বলনে মনে হয় এখনও তারা জমিদার বহাল আছেন, সমাজের সবাই তাদের আগের মতোই সম্মান করবে, কুর্নিশ করবে। তারা মানতেই চায় না এ এক নতুন সমাজ , তাদের জমিদারী আজ আর নেই। কিন্তু তা না থাকলে কি হবে, জমিদারী প্রথার মতোই শ্রেনী বৈষম্য এখন সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে। নব্য সমাজ প্রতিভূ জমিদারদের দাপটে সুন্দর সমাজ আজ ক্ষতবিক্ষত। সমাজের নানা অসংগতিগুলোই ওঠে এসছে নাটকের গল্পে।

তিনি আরো বলেন, নাটকের মূল উপজীব্য ভগ্নপ্রায়  মির্জা জমিদারের বাড়ী। এলাকার মানুষের কাছে এ বাড়ীটি এখনো অনেক বিস্ময়। প্রচুর ধন সম্পদ আর প্রাচুর্যেও কারণে এলাকার মানুষের কাছে তাদের অনেক সম্মান। উপর থেকে এই জমিদার বাড়ীর যতই চাকচিক্য থাক ভিতরে ভিতরে ফাটল ধরে গেছে। জমিদার রমজান মির্জা মারা যাবার সময় সমস্ত সম্পত্তি স্ত্রী রাবেয়ার নামে লিখে দিয়ে যান। রাবেয়ার তিন ছেলে- বাদশা, নবাব ও সম্রাট। গ্রামের মানুষ এটাও জানে-রাবেয়া মির্জা জমিদারের একক স্ত্রী নন, এক বাঈজীকে বিয়ে করেছে, তার ঘরেও আরো সন্তান আছে। এটা জানার পর ক্ষুব্ধ রাবেয়া মির্জা বিশ্বস্ত লোক দ্বারা জমিদার রমজান মির্জাকে পানিতে ডুবিয়ে হত্যা করান। হত্যার আগে সব সম্পত্তি জোর করে নিজের নামে লিখিয়ে নেয়। জমিদারের মৃত্যুরহস্য আজও অজানা। কাহিনী যত এগিয়ে যাবে ততই উন্মোচিত হবে একের পর এক নাটকীয়তা। আমার লিখা অন্যান্য নাটকগুলোর মতো জমিদার বাড়ী নাটকটিও দর্শকপ্রিয়তা পাবে বলে আমার বিশ্বাস।

এনএনবি/ডিকে








সর্বশেষ সংবাদ
রাজধানীতে অনুমতি ছাড়া সভা-সমাবেশ করলে ব্যবস্থা
রাজনীতিতে আমি কাউকে প্রতিহিংসা করিনা-সিংড়ার মেয়র ফেরদৌস
দম্পতিদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন নিষিদ্ধ
একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার জীবন যুদ্ধ
রংপুর অঞ্চলে বৈপ্লবিক পরিবর্তন
স্থাস্থ্য খাতে আমরা এগিয়ে আছি
চট্টগ্রাম নগরীতে ডোবায় মিলল লাশ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
এইডস রোগীদের মানসম্পন্ন চিকিৎসা নিশ্চিত করার জন্য রাষ্ট্রপতির আহ্বান
পহেলা ডিসেম্বরকে সরকারীভাবে মুক্তিযুদ্ধ দিবস ঘোষণার দাবী
দেশ হতে এইডস রোগ নির্মূল করার জন্য সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ : প্রধানমন্ত্রী
রংপুর অঞ্চলে বৈপ্লবিক পরিবর্তন
চট্টগ্রাম বন্দরের দুই একর জমি দখল মুক্ত
নতুন পিএসও-কে লে. জে. পদের ব্যাংক ব্যাজ পরানো হয়েছে
দম্পতিদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন নিষিদ্ধ
সম্পাদক : মোল্লা জালাল | প্রধান সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৪২/১-ক সেগুনবাগিচা, ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ।  ফোন +৮৮ ০১৮১৯ ২৯৪৩২৩
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত এনএনবি.কম.বিডি
ই মেইল: [email protected], [email protected]